ইবি ছাত্রলীগের অবস্থান কর্মসূচি

ইবি প্রতিনিধি-
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তি ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের দ্বারা হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে অবস্থান কর্মসুচি পালন করেছে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। শনিবার (১৪ মার্চ) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালন করে তারা। এসময় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেন আন্দোলনকারীরা ।

এর আগে একই দাবিতে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা। মিছিলটি দলীয় টেন্ট থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রধান ফটক সংলগ্ন ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের পাদদেশে মিলিত হয়। এসময় শাখা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত গ্রুপের বিপুল খান, শাহজালাল সোহাগ, শাহাদাত হোসেন নিশান, আলামিন জোয়াদ্দার, জুবায়ের, আবির, মোস্তাফিজুর রহমান, রাব্বি, হোসাইন মজুমদার, জয়, রাসেল, সালমান, হোসাইনসহ প্রায় দুইশতাধিক নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় নেতা-কর্মীদের হাতে ‘৪০ লাখে কমিটি মানি না মানবো না, অদক্ষ নেতৃত্ব মানি না মানবো না, অনৈতিক কমিটির বিলুপ্তি চাই, রাকিব-পলাশ কালসাপ ছাত্রলীগের অভিশাপ, পলাশ-রাকিবের বহিস্কার ও শাস্তি চাই’ সহ বিভিন্ন প্লাকার্ড দেখা যায়।

প্রসঙ্গত, গত বছর ১৪ জুলাই বাংলা বিভাগের রবিউল ইসলামকে সভাপতি এবং ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই সদস্যের কমিটি দেয় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কমিটি ঘোষণার দুই মাস পরে ১২ সেপ্টেম্বর রাকিবের ৪০ লাখে নেতা হয়ে আসা এবং ছয় মাসের মধ্যে ঐ টাকা দ্বিগুণ করার কথা সম্বলিত অডিও ফাঁস হয়। ঘটনার পর পদবঞ্চিত নেতারা পলাশ-রাকিবের কমিটিকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। পরে পলাশ ও রাকিব তাদের কর্মীদের নিয়ে কয়েকবার ক্যাম্পাসে ঢোকার চেষ্টা করলেও পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীদের ধাওয়ায় ব্যর্থ হন। এদিকে সর্বশেষ ২১ জানুয়ারি ছত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদক বহিরাগত সন্ত্রাসী দ্বারা শাখা ছাত্রলীগের কর্মীদের উপর হামলা চালায়। এসময় সম্পাদককে রক্তাক্ত করে ক্যাম্পাস ছাড়তে বাধ্য করেন শাখা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীরা।

এম বি রিয়াদ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

More News Of This Category