ইবিতে শহীদ আসাদের ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত 

ইবি প্রতিনিধি:
বিনম্র শ্রোদ্ধায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) শহীদ আমানুল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান আসাদের ৫০ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সোমবার (২০ জানুয়ারী) বেলা ১২ টায় র‌্যালি বের করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্র মৈত্রী।
র‌্যালিটি দলীয় টেন্ট থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে মিলিত হয়। সেখানে শহীদ আমানুল্লাহ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান আসাদের মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে তারা। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন শাখা ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি আব্দুর রউফ, সাধারণ সম্পদক মুতাসিম বিল্লাহ পাপ্পু। এছাড়াও সহ-সভাপতি আরিফুজ্জামান আরিফ ও শামিমুল ইসলাম সুমন, কার্যনির্বাহী সদস্য আবদুল্লাহ আল-মামুন এবং কোষাধ্যক্ষ রিপন রায়সহ সংগঠনটির অন্য নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ‘শহীদ আসাদ ছিলেন একজন বিপ্লবী ছাত্রনেতা। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র ছিলেন। ১৯৬৯ সালের ২০ জানুয়ারি পাকিস্তানি স্বৈরশাসক আইয়ুব খান সরকারের বিরুদ্ধে এ দেশের ছাত্রসমাজের ১১ দফা কর্মসূচির মিছিলে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে নিহত হন তিনি। যারা বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় অবদান রেখেছে আমরা তাদের ভুলে যাচ্ছি। অথচ এদের রক্তের উপর দাঁড়িয়ে আমরা স্বাধীনতা লাভ করেছি।’
উল্লেখ্য, শহীদ আমানুল্লাহ মোহাম্মদ আসাদ ছিলেন গণ-আন্দোলনের একজন অন্যতম পথিকৃৎ। ১৯৬৯ সালের ২০ জানুয়ারী আইয়ুব খানের পতনের দাবিতে মিছিলে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়। পরে ওই বছরের ২৪ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের ছয় দফা ও ছাত্রদের ১১ দফার ভিত্তিতে সর্বস্তরের মানুষের বাঁধভাঙা জোয়ার নামে ঢাকাসহ সারা বাংলার রাজপথে।  সংঘটিত হয় উনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থান।  পতন ঘটে আইয়ুব খানের। মুক্তিযুদ্ধে ও স্বাধীনতায় বিশেষ অবদানের জন্য ২০১৮ সালে তিনি স্বাধীনতা পদক পান।
সংবাদটি শেয়ার করতে নিচের অপশনে ক্লিক করুন

More News Of This Category